5 June- 2023 ।। ২২শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইয়াসমিন সুলতানা লিপি-তোমার এ কেমন চলে যাওয়া!

সোহেল সানি

ইয়াসমিন সুলতানা লিপি- তোমার এ কেমন চলে যাওয়া?
আমি হতভম্ব; বিষাদবেদনা আমাকে রুদ্ধশ্বাস করে দিচ্ছে।গতকাল দুপুরে ঘুমে নিষ্প্রাণ হয়ে আর খোলোনি নাকি চোখের পর্দা। তুমি নিস্তব্ধ-নিথর হয়ে গেছো প্রাণে ; এ বার্তা কী করে বহন করি আমি? নিজের আদুরে দুটো সন্তান? ওদের মায়াজাল ছিন্নভিন্ন করে চলে গেলে চির-অচেনার দেশে?
সেই ছোট্টবেলায় আমাদের একে অপরকে দেখা- তারপর কেটে গেছে “না দেখার” কতটা না বছর! তাতে কী! তারপরও ফুরায়ে যায়নি পরস্পরের মায়াবী টান আর স্নেহাতুর নিস্পাপ ভালোবাসা।
প্রিয় সহোদর রাহাদ সুমনের সুবাদে রাজধানীতেই তো আমরা একে অপরকে খুঁজে পেয়ে সেই সত্যসুন্দরেরই দেখা পেলাম। কী আশ্চর্য আমার সেই সহোদরই কিনা বাকরুদ্ধকন্ঠে দিলো তোমার এমন মৃত্যুর বার্তা।
খুব করে মনে পড়ছে – আমি জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে – শাহবাগের ইব্রাহিম কার্ডিয়াকে! তোমার দুরন্ত ছুটে আসা দুর্দমনীয় আবেগ আর পরম সহানুভূতি নিয়ে।
আমাকে দুঃসহ কষ্ট ও বুকের যন্ত্রণায় কাতর হতে দেখে ব্যাথাতুর হলে। কী অপূর্ব মায়াজাল বিছায়ে দিলে-চোখেতে গড়ায়ে এক নদী জল।
আমার মুখে মরার কথা আর চোখে কান্নার সাঁতার কাটতে দেখে অভয় বানী শুনিয়ে বললে-
“বাঁচা মরা আল্লাহর হাতে-আগে তো আমিও মরতে পারি।”
তবে কী তোমার অবচেতন মন থেকে উচ্চারিত সেদিনের সেই সরল উক্তিটিকেই বরণ করে নিলে?
এমন কঠিনেরে কেনো অকালে সত্য করে তুললে? নিজে চলে গেলে আর আমাকে দিয়ে গেলে বাঁচার সহানুভূতি? এ আমার কেমন পাওয়া?
তুমি জীবনের এ বেলায় এসে আবেগআপ্লুত কন্ঠে বলছিলে-
“আমি কী সেই ছোট্টবেলার মানুষটিকে দেখছি? যাকে আমি আমার টিপন ভাইয়ের কখনো লিটন ভাইয়ের বন্ধুবেশে দেখেছি আমাদের বাড়ির আঙিনায়! বানারীপাড়ায়-রায়েরহাটে-স্কুলের পথের বাঁকে -বাড়ির পুকুরপাড়ে-আমার ডাক্তার পিতার চেম্বারে।”
তুমি আমার লেখনী ও নামের অর্থ দাঁড় করিয়ে কি আর বলবে না -“তুমি হচ্ছো সত্যিকারের “রোদ”- স্যরি স্যরি আপনি হচ্ছেন-রোদ- এ পৃথিবীর রোদ?”
লিপি – তুমি আমার বাল্যবন্ধুর বোন শুধু নও আমার বোন সোহেলী সুমারও ছিলে সহপাঠী-বান্ধবী।তুমি যে আমার অতি প্রিয়-আপনজন।
২২ মার্চ তুমি কেঁদে ছিলে আমার শয্যাপাশে বসে আমার জীবনের গল্প শুনে। আর আজ আমি তোমাকে অদূরে কফিনে রেখে কাঁদছি এ লেখনীর একেকটি বাক্য বুনতে গিয়ে।চোখের জলে বুক ভাসায়ে রচনা করতে হলো তোমার চির ঘুমের বানী। এ যে আমি চাইনি। এ কেমন নিয়তি? আর বুঝি আমরা পরস্পরকে শেয়ার করবো না আমাদের সুখদুঃখ।
জন্ম যখন মৃত্যুর জন্য- তখন আমারও যে আসতে হবে তোমার দেশে। দেখা হবে নিশ্চয়ই। আমারও এ আয়ুর যে ভরসা নেই এক পলকের।
তুমি ভালো থেকো। তোমার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।
মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন
তোমার জন্য জান্নাতুল ফেরদৌস নসীব করুন।
তোমার ছেলেমেয়ে পরিবারকে করুন হেফাজত। আমীন।

সোহেল সানি

লেখকঃ সিনিয়র সাংবাদিক,কলামিস্ট,রাজনৈতিক বিশ্লেষক,ইতিহাসবেত্তা।

Sharing is caring!





More News Of This Category


বিজ্ঞাপন


প্রতিষ্ঠাতা :মোঃ মোস্তফা কামাল
◑উপদেষ্টা মহোদয়➤ সোহেল সানি
◑নজরুল ইসলাম মিঠু ◑তারিকুল ইসলাম মাসুম ◑এডভোকেট হুমায়ুন কবির(আইন উপদেষ্টা)
প্রধান সম্পাদক : মোঃ ওমর ফারুক জালাল

সম্পাদক: মোঃ আমিনুল ইসলাম(আমিন মোস্তফা)

নির্বাহী সম্পাদক: শফি মাহমুদ

বার্তা ও বানিজ্যিক সম্পাদক: বজলুর রহমান
প্রধান প্রতিবেদকঃ লাভনী আক্তার

ইমেইল:ajsaradin24@gmail.com

টেলিফোন : +8802-57160934

মোবাইল:+8801725-484563, বার্তা সম্পাদক+8801716-414756
টপ