2 July- 2022 ।। ১৯শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শ ম রেজাউল করিম – একজন যোগ্যতাসম্পন্ন সময়োপযোগী ত্যাগী ও পরীক্ষীত নেতার কথা

।।তৃণমূলের আত্মকথা ডেস্ক।।
পর্ব-১

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন বাংলাদেশের মানুষের কাছে উন্নয়ন মন্ত্রী হিসেবে খ্যাত, অবহেলিত পিরিজপুর কে নতুন করে ঢেলে সাজিয়ে যে মানুষটি ডিজিটাল পিরোজপুর এর জনক হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন সাধারণ মানুষের কাছে, তৎকালীন সেনাসমর্থিত সরকারের আমলে ভয়-ভীতি লোভকে উপেক্ষা করে যিনি দাঁড়িয়েছিলেন জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে, যখন পিরোজপুরসহ সারা বাংলাদেশের অনেক নেতাই জননেত্রী শেখ হাসিনার পাশ থেকে চলে গিয়েছিলেন নিজেদের গা বাঁচিয়ে নেয়ার জন্য, জীবনের সর্বোচ্চ ঝুঁকি নিয়ে সেসময় যে নেতা জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে লড়েছিলেন সত্যের হয়ে, জাতীয় রাজনীতির পাশাপাশি তৃণমূলের জনপ্রিয় এই নেতা যিনি বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা, জাতীয় চার নেতা হত্যা মামলা, 2004 সালের 21 আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলা সহ আওয়ামী লীগের অনেক গুরুত্বপূর্ণ মামলায় তিনি লড়েছেন আওয়ামী লীগ,আওয়ামী লীগ প্রধান ও আওয়ামী লীগের সাধারণ নেতাকর্মীদের হয়ে।সম্মূখ মৃত্যি জেনেও তার দলের চরম ক্রান্তিলগ্নে এতটাই ঝুঁকি নিতে পেরেছেন এবং তারই কর্মের সফলতার স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির আইন বিষয়ক সম্পাদক, পরবর্তীতে মনোনয়ন পেয়ে সর্বোচ্চ ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া ও পরবর্তীতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করা, এবং পরবর্তীকাল থেকে আজকে পর্যন্ত মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সফলভাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা কালিন সময়ে তিনি মন্ত্রণালয়ে এনেছেন নতুনত্ব, বরাবরের বিভিন্ন ঘটনা এবং বিভিন্ন কার্যের ধারায় গা ভাসিয়ে না দিয়ে বরং তিনি সরকারের এই গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়কে করেছেন জনবান্ধব। বর্তমানে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করাকালীন সময়ে এনেছেন এ মন্ত্রণালয়ের নতুনত্ব মোটকথা যেখানে নানাবিধ সমস্যা সেখানেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্নেহের রেজা। শ ম রেজাউল করিম জনবান্ধব এবং এই জনবান্ধবতা সৃষ্টিতে তার কোন পেশি শক্তিকে কাজে লাগাতে হয়নি, তাকে টাকা দিয়ে মানুষ কিনে নিতে হয়নি তাকে টাকা দিয়ে জনপ্রিয়তা কিনতে হয়নি, লোভের সাথে স্বার্থের সাথে নিজের স্বার্থের সাথে যুদ্ধ করে লোভ-লালসার ঊর্ধ্বে থেকে তিনি লড়েছেন দলের জন্য,কাজ করে চলছেন সাধারণ নিপীড়িত নির্যাতিত নেতাকর্মীদের জন্য। সুতরাং কে কি বলল, না, না বললো বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার একটি ভাষণ নিয়ে ভাষণটিকে বিভিন্নজন বিভিন্ন অ্যাঙ্গেল থেকে দেখছেন। আবেগ দিয়ে আর যাই হোক আওয়ামী লীগের রাজনীতি চলে না বাস্তবতায় এসে যা প্রতীয়মান হয়,দল
দল প্রধান, দলীয় নেতা-কর্মী -তৃণমূলের নেতাকর্মীরা থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছেন মানুষের অন্তরে। যায়গা করে নিয়েছেন তার দক্ষতা দিয়ে, তার অভিজ্ঞতা দিয়ে তার সততার দিয়ে।শ ম রেজাউল করিমের আরেকটি দিক হলো তিনি একজন প্রখ্যাত টকশো ব্যক্তিত্ব। প্রযুক্তির বিকাশের হাত ধরে গনমাধ্যমের বিকশিত হওয়ার সাথে সাথে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে যুক্তি দিয়ে বিভিন্ন বিষয়কে সঠিকতা প্রমাণিত করে মানুষের জন্য আওয়ামী লীগ সরকার জননেত্রী শেখ হাসিনার মানুষের জন্য কাজ করা এবং দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির কথা তিনি পৌঁছে দিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশি সহ,সারাবিশ্বের বুকে।
কাজেই, কাজ সততা মনুষ্যত্ব অভিজ্ঞতা জনপ্রিয়তা এর কোনোটাতেই পিছিয়ে নেই শ ম রেজাউল করিম বরং অনেক এর চেয়ে অনেক অংশে এগিয়ে রয়েছেন জনপ্রিয় এই নেতা।
গত সাড়ে তিন বছরে পিরোজপুর-১ আসনের মানুষ আপনারা একজন শ ম রেজাউল করিমের কারনে যতটা উন্নয়ন পেয়েছেন স্বাধীনতার পর থেকে পিরোজপুরে এত উন্নয়ন কেউ চোখে দ্যাখেনি,উদাহরণস্বরূপ পিরোজপুর -১ আসনের গ্রাম গঞ্জের রাস্তা ব্রিজ-কালভার্ট এর চলমান কাজ সহ, প্রায় ৭০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে বাকী কাজেরও ইতিবাচক প্রকৃয়া চলমান রয়েছে।অর্থাৎ উন্নয়ন
আপনাদের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দিয়েছেন এই নেতা। করোনা মহামারী কালীন কথা ভাবুন যখন অনেক নেতা ঘর থেকে বের হন নি, সেখানে শ ম রেজাউল করিম বারবার ছুটে গিয়েছেন পিরিজপুরের আপামর মানুষের কাছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করেছেন আপনাদের, অর্থাৎ জনবিচ্ছিন্ন হননি। পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপন এর কাজটি ছিলো চ্যালেঞ্জিং,তবুও তা শ ম রেজাউল করিম এর কারনে বাস্তবায়ন হয়েছে।পিরোজপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন, আবাসন প্রকল্প,বিসিক শিল্প নগরী, বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণ, আইসিটি পার্ক স্থাপন সহ বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের পথে।সুতরাং সাধারণ মানুষরাই মন থেকে চান তাদের নেতা,তাদের প্রতিনিধি কাজের মানুষ হোক।সুতরাং জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার এই সফরসঙ্গী, যিনি নিজগুণে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন।শ ম রেজাউল করিম ছিলেন, আছেন ভবিষ্যতেও থাকবেন ইনশাআল্লাহ। ইনশাআল্লাহ তিনি নিজগুণে আবারো জয়ী হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা আপাকে
পিরোজপুর -১ আসন উপহার দিবেন ইনশাআল্লাহ।
যেতে হবে বহুদূর ইনশাআল্লাহ।
জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু

মোঃআমিনুল ইসলাম (আমিন মোস্তফা)
লেখক-কলাম লেখক,রাজনৈতিক নেতা,

Sharing is caring!





More News Of This Category


বিজ্ঞাপন


প্রতিষ্ঠাতা :মোঃ মোস্তফা কামাল

প্রধান সম্পাদক : মোঃ ওমর ফারুক জালাল

সম্পাদক: মোঃ আমিনুল ইসলাম(আমিন মোস্তফা)

নির্বাহী সম্পাদক: এ আর হানিফ
কার্যালয় :-
৫৩ মর্ডান ম্যানশন (১২ তলা)
মতিঝিল, ঢাকা-১০০০

ইমেইল:ajsaradin24@gmail.com

টেলিফোন : +8802-57160934

মোবাইল:+8801725-484563,+8801942-741920
টপ